1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. updatebangladesh0@gmail.com : আপডেট বাংলাদেশ : আপডেট বাংলাদেশ
রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া ও হারুন অর রশীদ অপুর বিবাহ বিচ্ছেদ | আপডেট বাংলাদেশ করোনার ২য় আঘাত ৫ ডিসেম্বর, কম্বাইন্ড সিনিয়র অফিসার পদের পরীক্ষা | আপডেট বাংলাদেশ জনাবা মাহফুজা বেগম ভানু বাকেরগঞ্জ পৌরসভার ৪,৫ ও ৬ ওয়ার্ডে তৃতীয় বার কাউন্সিলর হতে সকলের দোয়া ও সমর্থন কামনা করেছেন | আপডেট বাংলাদেশ আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা, মনোনয়ন দাখিলের শেষ তারিখ ১ ডিসেম্বর, মনোনয়ন বাছাই ৩ ডিসেম্বর | আপডেট বাংলাদেশ ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে | আপডেট বাংলাদেশ সকল ধর্মের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক | আপডেট বাংলাদেশ বাংলাদেশ ব্যাংকের অধীনে ৯ ব্যাংক অফিসার পদে আবেদনে নতুন নিয়মে বিপাকে হাজারো চাকুরীপ্রত্যাশীরা | আপডেট বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদে ভাঙ্গন,সাবেক যুগ্ম আহবায়ক এ পি এম সুহেলের নেতৃত্বে নতুন কমিটি গঠন | আপডেট বাংলাদেশ কুমিল্লায় ধর্ষনের বিরুদ্ধে মানববন্ধন, সন্ধায় মশাল মিছিল | আপডেট বাংলাদেশ রাঙ্গাবালীতে বহুল প্রতীক্ষিত বিদ্যুৎ সংযোগ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন | আপডেট বাংলাদেশ

ফেসবুক থেকে নেয়া

সেপ্টেম্বরে কি মিলবে ভ্যাকসিন, ফাইনালে অক্সফোর্ড

  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্কঃ গোটা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৯ হাজার ছাড়িয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার লক্ষণ নেই। হার্ভার্ডের গবেষকদের আশঙ্কা সত্যি হলে, আগামী শীতে নতুন করে ফিরে আসবে কোভিড-১৯। প্রতিষেধকের জন্য যখন হাহাকার, আশার আলো দেখাচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। আজ থেকে ভ্যাকসিনের খোঁজে মানবদেহে পরীক্ষা-নিরীক্ষা বা হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করল তারা। বিজ্ঞানীদের আশা, ‘ফাইনাল পরীক্ষা’ সফল হলে সেপ্টেম্বরের মধ্যেই মিলে যাবে প্রতিষেধক।

গবেষক দলের নেতৃত্বে রয়েছেন, সারা গিলবার্ট, অ্যান্ড্রু পোলার্ড, স্যান্ডি ডগলাস, টেরেসা ল্যাম্ব এবং অ্যাড্রিয়ান হিল। ১৮ থেকে ৫৫ বছর বয়সি ৫১০ জন সুস্থ ব্যক্তিকে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। অক্সফোর্ড ও সাউদাম্পটনে পরীক্ষা চলবে। পরে আরও তিনটি জায়গায় শুরু হবে ট্রায়াল। জানুয়ারি থেকে গবেষণা শুরু করেছিল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘জেনার ইনস্টিটিউট’ ও ‘অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন গ্রুপ’। আজ দু’জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। প্রথম ভ্যাকসিন নেন এলিসা গ্রানাটো। তিনিও এক জন বিজ্ঞানী। জানিয়েছেন, বিজ্ঞান গবেষণায় সাহায্য করতেই ট্রায়ালে অংশ নিয়েছেন। অংশগ্রহণকারীদের দু’দলে ভাগ করা হয়েছে। এক দলকে কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। অন্য দলকে মেনিনজাইটিসের। কাকে কী দেওয়া হচ্ছে, অংশগ্রহণকারীদের জানানো হবে না। তাঁদের পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। গিলবার্ট বলেন, ‘‘এই প্রতিষেধকের কার্যকারিতা নিয়ে আমি নিশ্চিত।’’

অক্সফোর্ডের তৈরি ভ্যাকসিনটির নাম ‘চ্যাডক্স১’। এটি একটি ‘অ্যাডিনোভাইরাস ভেক্টর ভ্যাকসিন’। অ্যাডিনোভাইরাস একটি সাধারণ সর্দি-জ্বরের ভাইরাস, শিম্পাঞ্জিদের থেকে তৈরি। ভাইরাসটিকে ভেক্টর বা বাহক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। ভেক্টর ভ্যাকসিন হল এমন এক ধরনের প্রতিষেধক, যাতে ক্ষতিকর ভাইরাসটির (সার্স-কোভ-২ বা নোভেল করোনাভাইরাস) নিউক্লিক অ্যাসিড একটি বাহক মাইক্রোব (অন্য কোনও ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া)-এর সাহায্যে মানুষের দেহে প্রবেশ করানো হয়। বাহক মাইক্রোবটি ভাল, তারা কোনও ক্ষতি করে না। দেহে ঢুকে তারা খারাপ ভাইরাসটির নিউক্লিক অ্যাসিডের সাহায্যে কিছু প্রয়োজনীয় প্রোটিন (এ ক্ষেত্রে স্পাইক প্রোটিন) তৈরি করে ফেলে। প্রোটিনগুলোকে দেখে আমাদের শরীর মনে করে ক্ষতিকর ভাইরাসটি হামলা করেছে। সে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে শুরু করে। রোগ হওয়ার আগেই আমাদের দেহে সে রোগের প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়ে যায়। এই পদ্ধতিটি বাচ্চা থেকে বয়স্ক, এমনকি অসুস্থদের জন্যেও নিরাপদ বলে দাবি করেছেন অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন