1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : Admin. :
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:৩৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ইউনিয়ন তহসিলদার জাকির হোসেন এখন শ্রীঘরে ২০৪১ সালের আগেই শিল্প সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরির লক্ষে দক্ষিনাঞ্চলে উন্নয়ন মহাপরিকল্পনা গ্রহন কলাপাড়ায় অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ খেয়া পারাপার কারিদের লক্ষ্য এবার ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ তৈরিতে শেখ হাসিনার বিকল্প শেখ হাসিনাই বললেন অ্যাড.আফজাল হোসেন পটুয়াখালীতে চোরাই গরুসহ চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার চলনবিল শিক্ষা উৎসবের দ্বিতীয় দিনে গণিত ক্যাম্প উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত জুনায়েদ আহমেদ পলক পটুয়াখালী তে পুলিশ সুপার কতৃক শীতবস্ত্র বিতরণ কাঁচা-পাকা চুল, এক মুখ দাড়ি নিয়ে কোথায় চললেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি? পটুয়াখালীতে অপরিকল্পিত ভাবে ফেলা বর্জ্য অপসারন এবং পরিবেশ দূষণ থেকে মুক্তির দাবিতে তৃপক্ষীয় সংবাদ সম্মেলন।

কলাপাড়ায় ১ম শ্রেনীর শিশুকে পেটালেন শিক্ষক রিয়াজ উদ্দিন | আপডেট বাংলাদেশ

  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২
  • ১৩৫ বার পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্টঃ
কলাপাড়ায় শ্রেনী কক্ষের অংক খাতায় শিশু শিক্ষার্থীর লেখার লাইন সোজা না হওয়ায় ১ম শ্রেনীর শিশু শিক্ষার্থী মোঃ তৌসিকুর রহমান সিয়াম (৭)কে স্কেল দিয়ে বেধড়ক পেটালেন শ্রেনী শিক্ষক মো: রিয়াজ উদ্দিন। এঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অভিভাবক মোসা: সুমাম্মা আক্তার সুমি প্রতিবাদ করায় সহকারী শিক্ষক রিয়াজ উদ্দিন অসৌজন্যমূলক আচরন করেন ওই অভিভাবকের সাথে।
গতকাল সোমবার (১আগষ্ট) সকালে রহমতপুর কেজিএ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। শিশু শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পেটানোর এ ঘটনায় সংক্ষুব্ধ অভিভাবক দম্পতি মো: হাবিব হাওলাদার ও মোসা: সুমাম্মা আক্তার সুমি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করেছেন। ভুক্তভোগী শিশু শিক্ষার্থীর অভিভাবক মোসা: সুমাম্মা আক্তার সুমি বলেন, আমার ছেলে রহমতপুর কেজিএ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীর ছাত্র, শ্রেনী রোল ২২। শ্রেনী কক্ষে বসে অংক খাতায় লাইন সোজা করে লিখতে না পারায় শ্রেনী শিক্ষক তাকে স্কেল দিয়ে অমানবিক ভাবে মেরেছে। আমি এর প্রতিবাদ করায় তিনি আমার সাথেও খারাপ আচরন করেন।

’ অভিভাবক সুমি আরও বলেন,’এর আগে গত বুধবার স্কেল দিয়ে এবং বৃহস্পতিবার ওই শিক্ষক আমার ছেলেকে থাপ্পড় মেরেছেন। এতে শিশু সিয়ামের জ্বর হয় এবং সে ভয় পেয়ে স্কুলে আর আসতে চায়নি। অভিযুক্ত শিক্ষক মো: রিয়াজ উদ্দীন শিশু শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনা অস্বীকার করেছেন।

প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য জানতে মুঠো ফোনে একাধিকবার সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

কলাপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অচ্যুতানন্দ দাস বলেন, শিশু শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা এসে মৌখিক ভাবে অভিযোগ দেয়ার পর শিক্ষক রিয়াজ উদ্দীনকে ডেকে সতর্ক করা হয়েছে। এছাড়া এ বিষয়ে তাকে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে লিখিত জবাব দাখিল করতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন